Let’s develop a high selling theme for TF

Let’s develop a high selling theme for TF … Some never do marketing tips … How much money you can make per year? …
=========================================================

সমস্যা হল TF এ আর আগের মত সেল নেই … কারণ, এখন আগের চেয়ে অথোর অনেক বেশি … আইটেম অনেক বেশি … তার মানে কাস্টোমারদের হাতে অপশন অনেক বেশি … ব্যাপারটা অনেকটা এই রকম …

আপনার দোকানের সামনে যদি একই রকম দোকান আরেকজন খুলে বসে … তবে আপনার ব্যবসার গ্রাফ নিম্নমুখী হবে … সেটাই স্বাভাবিক … তবে যদি এমন হয় আপনার দোকানের জিনিসের কোয়ালিটি অনেক ভালো, অন্যদের চেয়ে ইউনিক …

তবে একটা কেন আপনার দোকানের সামনে কেউ ১০টা নতুন দোকান খুলে বসলেও আপনার ব্যবসায় তার কোন ইফেক্ট পড়বে না … সেটাই স্বাভাবিক … একই কথা TF এর জন্যও প্রযোজ্য …

যার কারণে দেখবেন … যারা ভালো প্রোডাক্ট ডেভেলপ করছে … ইউনিক আইটেম দিচ্ছে … তাদের সেল আগের মতই হিউজ … আমার মতে কিছু টিপস ফলো করলেই TF এ ধামাকা করা সম্ভব …

=========================================================

১) ডিজাইন থিউরি মেনে ডিজাইন করুন … চোখে যা দেখতে সুন্দর তা সবসময়ই ভালো ডিজাইন নয় … Visual Hierarchy, Typography এগুলোর উপর নজর দিন …

=========================================================

২) অন্যের ডিজাইন কপি না করে যথাসম্ভব ইউনিক ডিজাইন করার চেষ্টা করেন … অন্যের ডিজাইন থেকে ইন্সপাইরেশন অবশ্যই নিবেন কিনতু হুবহু কপি করে বসবেন না … It is really a bad practice …

=========================================================

৩) প্রোগ্রামিং বা কোডিং এর সময় গুড প্র্যাকটিস ফলো করেন … যেমনঃ ওয়ার্ডপ্রেসের ক্ষেত্রে Except some special case, never do do_shortcode now and then … আবার যে শর্টকোড আপনার আইটেমে কোন ভূমিকাই রাখে না … তা ডিলিট করে দিন … আজাইরা শর্টকোড আপনার উপকারের চেয়ে ক্ষতিই বেশি করবে … আপনার থীম স্লো করবে …

=========================================================

৪) Always remember that unless it is good enough in design and those tons of features or options really make good sense, loading tons of features and options in your theme, doesn’t make good sells …

মনে রাখতে হবে যত বেশি অপশন, যত বেশি ফিচার … তত স্লো লোডিং … আর একটা সাইট যত বেশি স্লো লোড হবে তার ভিজিটর বাউন্স রেট তত বেশি … আর বাউন্স রেট যত বেশি SEO পারসপেকটিভে তা তত বাজে ওয়েবসাইট … তাই শুধু শুধু শত শত ফিচার আর অপশন দিয়ে থীমের লোড না বাড়িয়ে বরং যত টুকু দরকার ততটুকুই দেন … অপ্রয়োজনীয় ফিচার বা অপশন দিয়ে ভরিয়ে ফেলা মানেই গুড সেল ভলিউম নয় … কাস্টমারগণের নজর কাড়তে ফাস্ট লোডিং এর দিকে নজর দিন …

এর জন্য আরও যে সব বিষয়ের প্রতি খেয়াল রাখা উচিত …
*********************************************************
> সবার আগে Good Code Quality …

> আপনার প্রোডাক্টে যথাসম্ভব কম সংখ্যক JS/jQuery plugin দেবার চেষ্টা করেন …

> সকল JS plugins একটি মাত্র ফাইলে লোড করার চেষ্টা করেন …

> JS মিনিমাইজ করুন … মূল কথা, Combine and Minify Your Scripts …

> Demo তে CSS মিনিমাইজ করুন …

> jQuery এর লেটেস্ট ভার্সন ইউজ করুন …

> Use For Instead of Each … cause jQuery’s each function may take over 10 times as long as JS native “for” loop … This will certainly increase when dealing with more complicated stuffs…

> In jQuery where possible, try to use ID slectors Instead of Classes ..

> ওয়ার্ডপ্রেস থীম ডেভেলপের সময় … চেষ্টা করুন wp_enqueue_script ফাংশনের $in_footer Boolean প্যারামিটার True সেট করতে …

If you set this to true, your script will be loaded in the footer, and therefore after much of the rest of the page has loaded … I always do this for things like sliders, because that way my slider script won’t prevent more important things on my page from loading … Just think about what you’re loading when you consider whether or not to do this …

> Avoid CSS prefixes … যথাসম্ভব vendor-specific prefixes এভোয়েড করার চেষ্টা করুন … আপনার যদি CSS prefix ব্যবহার করতেই হয় … তবে Grunt PostCSS ব্যবহার করতে পারেন … use Grunt PostCSS to automate the management of prefixes within your CSS … এটা Microsoft Edge ব্রাউজার সহ মডার্ন সব ব্রাউজারের জন্য সেইফ টেকনিক …

> থীমের আকর্ষণ বাড়াতে হাই রেজ্যুলেশনের অপটিমাইজ করা ইমেজ ব্যবহার করুন …

=========================================================

৫) থীমের পারফরমেন্স ঠিক রাখার সাথে সাথে আপনার সার্ভারের পারফরমেন্সের দিকেও নজর দিন … বহু কষ্টে আপনি একটা ভালো প্রোডাক্ট ডেভেলপ করলেন কিনতু সেটা যদি স্লো সার্ভারে হোস্ট করা হয় তবে … আপনার সকল শ্রম পণ্ড শ্রমে পরিণত হবে …

এর জন্য ভালো হোস্টিং প্রোভাইডার থেকে হোস্টিং কিনুন … শেয়ার্ড হোস্টিং ব্যবহার না করাই বেটার … বাজেট ভালো হলে A Small Orange বা Media Template এর Managed VPS খুব ভাল অপশন হতে পারে … আর বাজেটে না কুলালে … Digital Ocean আর Linode এর Unmanged VPS এর তুলনা নেই …

আর VPS এ OS হিসেবে আমার পছন্দ Debian Linux ও Ubuntu … Server হিসেবে Apache এর দিন অনেক আগেই শেষ … অবশ্যই NGINX ব্যবহার করুন আর সার্ভারের Gzip Compression এনাবেল করে রাখুন … দেখবেন আপনার সাইট ভুর ভুর করে লোড হবে …

আরেকটি টিপস হল, MySQL এর বদলে MariaDB ইন্সটল করুন … ডাটাবেজের উপর লোড কমাতে Memcache একটি ভালো সমাধান হতে পারে …

এই টিপস গুলো আপনার থীম/সাইট লোড দ্রুততর করবে … যা আপনার সেল ভলিউমে বেশ বড়সড় ইফেক্ট ফেলবে গ্যারান্টেড …

=========================================================

৬) সার্ভারের ক্যাশিং অপশনও আপনার সাইট দ্রুত লোড করতে বেশ সাহায্য করে … সেইসাথে ওয়ার্ডপ্রেস থীমে অবশ্যই W3 TC বা WP SC ইউজ করবেন …

=========================================================

৭) Visual Hierarchy এর দিকে সুদৃষ্টি রাখুন সবসময় … আসেন একটু উদাহরণ দেখি … নিচের এই থীমটা এখন পর্যন্ত মার্কেটে বাংলাদেশী টাকায় প্রায় ১৮ লাখ টাকার বিজনেস করেছে … এন্ড স্টিল দ্যা মানি ইজ কাউন্টিং …

ছবি -১ … https://goo.gl/uZNc1b

ছবি -২ … https://goo.gl/ES5rqt

উপরের দু’টো ভার্সনে আমি শুধু থীমটার ব্লগ পোস্ট দেখালাম … এখন কথা হল প্রথমটা থীমটির হার্ড রিজেক্টেড ভার্সন … আর দ্বিতীয়টি একসেপ্টেড ভার্সন … প্রশ্ন হল কেন ? …

দেখে মনে হবে … আরে প্রথমটাই তো বেশ রঙচঙা সুন্দর বেশি … আর সেটা কিনা হার্ড রিজেক্ট ? … আসেন একটু বিশ্লেষণ করার আগে এই সাইটটা একটু ভিজিট করি … http://goo.gl/qXcg0O

কি দেখলেন ? … দৈনিক যুগান্তরের কোন একদিনের কপি, দেখেন এখানে কি সুন্দরভাবে Visual Hierarchy মেইনটেইন করা হয়েছে … যখনই আপনি পত্রিকা খুলবেন, আপনার চোখ সবার আগে কি নোটিশ করবে ? … উত্তর, একটা ছবি নোটিশ করবে … একদল মেয়ে বই হাতে দৌড়ে আসছে … এর পরেই ছবির নিচে হেডিং “বড় নাশকতার আশংকা” … সেখানে আপনার চোখ চলে যাচ্ছে অটোমেটিকেলি … তাই নয় কি? …

অথচ ছবির নিচে দেখেন একটা ক্যাপশন আছে “বছরের প্রথম দিনে নতুন বই হাতে উৎসবে মেতে উঠেছে ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা” … ক্যাপশনটা কিনতু ততটা ইম্পরট্যান্ট নয় যতটা না ইম্পরট্যান্ট হেডিংটা … তাই সম্পাদক হেডিংকেই প্রায়োরিটি দিয়ে ডিজাইন করেছেন …

কারণ ক্যাপশন না পড়লেও চলবে … এভাবে সবসময় গুরুত্ব দিয়েই Visual Hierarchy সাজাতে হয় … মনে রাখতে হবে ছবি বা গ্রাফিক্যাল এলিমেন্টের Visual Hierarchy সবচেয়ে বেশি হয় … কারণ আমাদের চোখ ও ব্রেইন সেভাবেই প্রোগ্রাম করা …

পত্রিকায় যদি সম্পাদক সাহেব … হেডিং এর ফন্ট আরও বিশাল করেও দিতেন তাহলে কি চোখে সবার আগে “বড় নাশকতার আশংকা” লাইনটা নোটিশ করত নাকি ছবিটাই … উত্তর হল, ছবিটাই … কারণ, আমাদের ব্রেইন ও চোখের কাছে ছবি বা গ্রাফিক্যাল এলিমেন্টের আকর্ষণ সবসময়ই বেশি …

এখন উপরের উদাহরণের Visual Hierarchy ইস্যু গুলা চিহ্নিত করি …

ইমেজ দেখতে এখানে ক্লিক করেন … https://goo.gl/VrGRZ3

দেখেন 1 এর সাথে 2 আর 3 এর সাথে 4 কত বেশি কনফ্লিক্ট করছে … ভিজিটর এসে বেশ কনফিউজড হয়ে যাবে যে 1 নং হেডিং বেশি গুরুত্বপূর্ণ নাকি 2 নং মেটা ইনফো গুলো !!! … আবার 4 নং সোশ্যাল বুকমার্ক এর কনট্রাস্ট এত বেশি যে মনে হচ্ছে যেন … 3 নং “Read More” লিঙ্ক নোটিশই করা যাচ্ছে না … খুবই ভয়ংকর অবস্থা … ডিজাইনের মা-বোন সব এক করে ফেলা হয়েছে … নিয়ম-নীতির কোন বালাই নাই … হাহাহাহা …

অথচ দেখেন … ২ নং ছবিতে কি সুন্দরভাবে সব ফিক্স করে ফেলা হয়েছে …

এখানে দেখেন, বুঝাই যাচ্ছে মেটা ইনফো নয় বরং হেডিং বেশি ফোকাসড … আবার নিচের দিকে “Read More” লিঙ্ক সোশ্যাল বুকমার্ক থেকে অনেক বেশি ফোকাসড … অসম্ভব পারফেক্ট Visual Hierarchy … সাধে কি আর একটা থিম ১৮ লাখ টাকার বিজনেস করে ? 🙂 …

ছবি -২ … https://goo.gl/ES5rqt
=========================================================

৮) এখন আসি আরেকটি টিপসে আপনি যখন ওয়ার্ডপ্রেস ডেভেলপার আর খুব ভালো সেল ভলিউম আপনার কাম্য … তখন Extended License কিনে Visual Composer থিমের সাথে বান্ডিল করে দিন …

আজকাল কাস্টোমারদের বেশিরভাগই থীম কেনার আগে চেক করে যে …থীমের সাথে VC দেয়া আছে কিনা … আর VC বান্ডিল করে দিলে রিভিউ পরীক্ষায়ও উতরে যাবার সম্ভাবনা বেশি থাকে … তার মানে এই না যে, VC দিলেই থীম একসেপ্টেড … তবে এটা পরীক্ষিত VC attracts your buyers, as a result there is a high possibility that you may get high sell volume …

আর যদি বাজেটে কুলায় তবে Revolution Slider এরও Extended License কিনে বান্ডিল করে দিন … I swear, these two ultimate plugins will increase your sell volume dramatically …

=========================================================

৯) আপনার থীম মডার্ন সব ব্রাউজার Compatible করে ডেভেলপ করুন … সব ব্রাউজারে ঠিকমত কাজ করে কিনা … তা চেক করুন … বিশেষ করে, Microsoft Edge, Mozilla, Chrome and Safari … সেই সাথে বন্ধুদের Android Device, iPhone and iPAD এও চেক করে দেখুন কোন সমস্যা আছে কিনা …

=========================================================

১০) সবসময় মনে রাখবেন, Customer is the King … সাপোর্ট দেবার ক্ষেত্রে যথাসম্ভব ভালো ব্যবহার করুন … তারা যত অদ্ভুত প্রশ্ন বা সমস্যা নিয়ে হাজির হোক না কেন … তাদের সাপোর্ট দেবার চেষ্টা করুন … মনে রাখবেন … Good customer support is proportional to good sell volume … আপনি যত ভালো কাস্টোমার সাপোর্ট দিবেন তত বেশি আপনার রেপুটেশন বাড়বে …

=========================================================

১১) খুব ভালো একটি টিম নিয়ে কাজ শুরু করুন … সবার আগে দরকার একজন খুব ভালো ডিজাইনার, যার ডিজাইন সেন্স ও ডিজাইনের যাবতীয় থিউরী সম্পর্কে স্বচ্ছ ধারণা আছে … Visual Hierarchy, Typography, Golden Ratio Point, Composition and Design সম্পর্কে খুব ভালো জ্ঞান রাখে এমন কাউকে দলে নিন …

এর পরে একজন খুব ভালো ফ্রন্টেড ডেভেলপার নিন … যার HTML5 ও CSS স্কিল খুব ভালো …

এর পরে লাগবে একজন ভালোমানের PHP programmer … যার Software Engineering, Design Pattern, WP Codex এগুলো সম্পর্কে যথেষ্ট ভালো জ্ঞান আছে …

গ্রুপে একজন JavaScript গুরু রাখতে পারলে তো সোনায় সোহাগা …

ফাইনালি যদি Unmanged VPS ব্যবহার করেন তবে সার্ভার মেইনটেইনের জ্ঞান রাখে এমন কাউকেও সাথে রাখুন …

হয়ে গেল একটা মারদাঙ্গা টিম 🙂 …

=========================================================

১২) সবশেষে বলব, আইটেম ডেভেলপ করতে তাড়াহুড়ো নয় … সময় নিয়ে ডেভেলপ করুন … কারণ, ব্যাড ডিজাইনের ১০ টা আইটেম থাকার চেয়ে গুড ডিজাইনের ১ টা আইটেম থাকা ঢের ভালো …

Some never do marketing tips
**************************************************

এবার আসুন মার্কেটিং এর কিছু টিপস … প্রথমেই বলে দেই, আমি কাউকে মার্কেটিং শেখাই না … তাই এই সম্পর্কে আমাকে প্রশ্ন না করাই ভালো … তাছাড়া, আমার মার্কেটিং জ্ঞানও সীমিত …

যখন আমরা TF এর জন্য কাজ শুরু করেছিলাম তখন বলা যায় খুব একটা মার্কেটিং করা লাগত না … কিনতু দিন দিন কম্পিটিশন অনেক বেড়ে যাওয়ায় মার্কেটিং করাও এখন খুব জরুরী একটা স্টেপ …

অবশ্যই পেইড মার্কেটিং করতে হবে … আর পেইড মার্কেটিং করতে গিয়ে অনেকেই যে ভুলটা করেন তাহলো … তারা মনে করে বসেন পেইড মার্কেটিং মানেই Google Adsense and Facebook Ad …

আসলে যারা অনেক বড় অথোর তাদের জন্য Google Adsense and Facebook Ad মিডিয়া ঠিক আছে … যেমন দেখবেন, Avada, X Theme, Enfold এরা Google Adsense and Facebook Ad দিয়ে থাকে … তাদের জন্য ঠিক আছে … কারণ তারা অনেক বড়, তাদের আর্ন বিশাল …

কিনতু নতুনদের জন্য এটা মোটেই ফলপ্রসূ নয় … যেমন, Google Adsense এর কথাই ধরেন … Google Adsense এ ইফেক্টিভ মার্কেটিং করতে হলে আপনাকে একজন Google Adwords গুরু হতে হবে … নয়তো এমন কাউকে হায়ার করতে হবে যে এগুলা ভালো বুঝে …

কারণ, না জেনে না বুঝে Keyword টার্গেট করে আপনি কখনওই আপনার লক্ষ্যে পৌছতে পারবেন না … শুধু শুধুই টাকা নষ্ট হবে … Adwords গুরু হওয়া আবার কোন ছেলে হাতের মোয়া নয় … যে চাইলাম আর রাতারাতি Adwords specialist বনে গেলাম …

তাই যারা বড় কোম্পানি তারা হয়তোবা এমন গুরুদের তাদের মার্কেটিং টিমের জন্য হায়ার করে ফেলে … কারণ তাদের বাজেট অনেক বেশি … তাই নতুনদের জন্য Google Adsense কখনওই নয় …

আবার যদি আসি Facebook Ad এর কথায় … আগে ভেবে দেখেন আপনার টারগেটেড অডিয়ান্স যারা তাদের বেশিরভাগই কি ফেসবুক ইউজার বা তারা কি ফেসবুকে থীম কিনতে আসে ? … উত্তরঃ সম্ভবত না … Facebook Ad দিয়ে কিনতু অনেকেই লাভবান হয়, এটাও সত্য … যেমন ধরেন, আপনি অনলাইনে শাড়ি বা সালোয়ার কামিজ বিক্রি করেন …

এখন আপনি যদি কোন শাড়ি বা সালোয়ার-কামিজ পরিহিত মডেলের ছবি দিয়ে ফেবুতে এড দেন … তাহলে ঠিক আছে … কেননা আপনার টারগেটেড অডিয়ান্স কিনতু মেয়েরা … আর ফেসবুক ইউজারদের মাঝে অর্ধেকই কিনতু নারী …

তাই খুবই সম্ভাবনা আছে প্রতি ২০ জন মেয়ে সেই এড দেখলে তাদের মাঝে ৭/৮ জন হলেও সেই এডে ক্লিক করবে … কারণ জামা-কাপড় বা জুয়েলারির প্রতি মেয়েদের আকর্ষণ সব সময়ই বেশি থাকে … আর প্রতি ৭/৮ জনের মাঝে যদি একজন মেয়েও শাড়ি, কামিজ বা জুয়েলারি কিনে নেয় … তবেই আপনি সফল …

কিনতু ফেবুতে থীমের এড দিয়ে সেই সফলতা পাবার সম্ভাবনা অনেকই কম … কারণ ফেসবুকে কেউই থীম কিনতে আসে না …

তবে বড় অথোরদের কথা আলাদা … তাদের মার্কেটিং টিম সহজেই Google Adsense and Facebook Ad মিডিয়া থেকে লাভ উঠিয়ে আনতে পারে … তবে এটাও বলে দেই, বড় কোম্পানি গুলোর লক্ষ্য মূলতো Google Adsense and Facebook Ad মিডিয়াতে ইনভেস্ট করে ইনভেস্ট করা টাকা উঠিয়ে নেয়া নয় … বরং সাইটের ভিজিটর ও পপুলারিটি বাড়ানোই থাকে আসল লক্ষ্য … যদিও ভিজিটর আর পপুলারিটি বৃদ্ধি মানে আবার সেল বাড়া … সেটা আরেক প্যাঁচাল …

তাই নতুন অথোর বা স্টার্ট-আপদের জন্য বলব … Stay away from Google Adsense and Facebook Ad …

How much money I can make ?
***************************************************************
Okay … Now the most difficult question arises … আসলে এর উত্তর দেয়া খুব কঠিন …

প্রথমত কথা হল … একটা আইটেম অনেক সময় ধরে সেল হবে এমন আইটেম ডেভেলপ করতে হবে … এজন্য ভালো ক্যাটাগরি বাছাই জরুরী … শুধু মাল্টি পারপাস থীম মানেই হিউজ সেল কথাটা ঠিক নয় …

তবে প্রোপার মার্কেটিং, যথেষ্ট Eye Caching প্রোডাক্ট, Effective প্রোডাক্ট ডেভেলপের সাথে সাথে ভালো কাস্টোমার সাপোর্ট দিলে খুব ভালো এমাউন্ট রিটার্ন আনা সম্ভব …

আচ্ছা ধরেন আগামী ১২ মাসে মানে ১ বছরে আপনি সর্বমোট ৭ টি আইটেম ডেভেলপ করলেন … তো TF এ দেখা যায় কোন আইটেম হাজার সেলও হয় আবার কোন আইটেম ১০০/২০০ও ক্রস করে না … তবে প্রোপার মার্কেটিং আর ইফেক্টিভ আইটেম থাকলে আশা করাই যায় আপনার এভারেজ সেল পার আইটেম হবে ২০০+ …

তার মানে ৭টি আইটেম কমবেশি ১৫০০ সেল হল … এখন TF এ আইটেমের প্রাইজ এক এক রকম হয় … ধরলাম সব গুলোই ওয়ার্ডপ্রেস আইটেম … ওয়ার্ডপ্রেস আইটেমের প্রাইজ $49 থেকে $59 পর্যন্ত হয়ে থাকে … হিসেবের সুবিধার জন্য ধরে নিলাম আপনার ৭ টি আইটেমের মূল্যই $49 করে …

তাহলে আপনার টোটাল সেল ভলিউম হবে … $49 x 1500 = USD $73500 … সেল যত বাড়বে TF আবার শেয়ার তত বেশি দিবে … যা সর্বোচ্চ 75% …

হিসেবের সুবিধার জন্য ধরলাম বছর ধরে আপনি মোট সেলের 55% পেলেন … তবে সব মিলিয়ে আপনি পাবেন …
$73500 X 55% = USD $40425 …

এখন আমি যদি USD 1 = BDT 77 ধরি তবে বাংলাদেশী টাকায় আপনি পাবেন … $40425 x 77 = BDT 31,12,725 … অর্থাৎ, ৩১ লক্ষ ১২ হাজার সাতশত পঁচিশ টাকা … প্রকৃত হিসেবে টাকার এই অংক আরও অনেক বেশি হবে কেননা সব আইটেমের মূল্য $49 এর উপরেও হতে পারে … আবার সারা বছর ধরে আপনি ৫৫% পাবেন না, আরও বেশি পাবেন … কেননা হিসাব সহজ করতে আমি ধরে নিয়েছি ৫৫% constant share ratio … তাছাড়া সব আইটেম ২০০+ নয় বরং একই আইটেম ৫০০ কিংবা ১০০০ সেলও হতেই পারে … অসম্ভব কিছুই নয় …

এখন একটু বাস্তবতায় আসি … না উপরে যে হিসেব করলাম তা মোটেই অবাস্তব নয় … চাইলে TF থেকে বছরে কোটি টাকা রিটার্ন আনা কোন অসম্ভব ব্যাপার নয় … কেননা অনেকেই তা করছে …

তবে বাস্তবতা হল হিসেব যত সহজে দেখালাম … তা বাস্তবায়ন কিনতু আবার এত সোজা নয় … অনেক কঠিন … যারা প্রতি বছর TF থেকে কোটি কোটি টাকা রিটার্ন আনছে তারা ১ দিন ২ দিনে এই অবস্থায় পৌছায় নাই … অনেক অধ্যবসায় আর কঠোর পরিশ্রমের ফসল …

তাই চাইলে বছরে ৩১ লাখ টাকা থেকে ৫০ লাখ টাকা পর্যন্ত রিটার্ন আনা কোন দিবা স্বপ্ন নয় … এটা সম্ভব … অবশ্যই সম্ভব … শুধুমাত্র WordPress ও HTML থীম ডেভেলপ করে GoodLayers, Qode, MuffinGroup এর মত অথোরদের যেখানে মাসিক ইনকাম প্রায় ৫০ লাখ টাকার কাছাকাছি … আর আমি তো সেখানে টার্গেট দেখিয়েছি মাসেরও না বছরে ৩১ লাখ টাকা 🙂 …

সবাই যে এটা পারবে আমি তাও বলছি না … আগে নিজেকে প্রশ্ন করুন আপনার সেই যোগ্যতা আছে কি না … যদি থেকে থাকে তবে আজ থেকেই উঠে পড়ে লাগুন … আর যদি মনে করেন যে না আপনি কনফিউজড তবে বলব প্লিজ সময় নষ্ট করবেন না … এটা কিনতু মেনে নিতেই হবে সবাইকে দিয়ে সব হয় না … তাই না … “আপনাকে দিয়ে হবে না ” এটা আগে ভাগেই মেনে নেয়া কোন ব্যর্থতা নয় … ব্যর্থতা হল, ভুল সিদ্ধান্ত নিয়ে ভুল পথে গিয়ে ব্যর্থ হয়ে ফিরে আসা …

সবাই কিনতু স্টিভ জবস, বিলগেটস বা মার্ক জুকারবার্গ হতে পারে না … আল্লাহ পাক সবাইকে কোন না কোন বিশেষ গুণ দিয়ে পৃথিবীতে প্রেরণ করেন … তাই দেখেন হয়তো সফটওয়্যার বা ওয়েব ডেভেলপমেন্ট নয় অন্য কোন সেক্টরে আপনার সাফল্য সৃষ্টিকর্তা লিখে রেখেছেন …

=========================================================

Source Tree: https://www.facebook.com/notes/envato-bangladesh/lets-develop-a-high-selling-theme-for-tf-some-never-do-marketing-tips-how-much-m/894712437250162

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s